মেটাট্রেডার৪ এ চার্ট সেটআপ

মেটাট্রেডার৪ এ চার্ট সেটআপ কিভাবে করবেন

মেটাট্রেডার৪ এ চার্ট সেট আপ করা বেশ সহজ যদি আপনি জানেন তা কিভাবে করতে হয়, কিন্তু যদি আপনি প্রথমবার সেটাপ করতে শুরু করেন তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনাকে সহায়তা করবে। 

যদি আপনি পূর্বের আর্টিকেলগুলো পড়ে থাকেন এবং সেভাবে করে একাউন্ট ওপেন থেকে শুরু করে, ট্রেডিং প্লাটফর্ম ডাউনলোড করে থাকেন তাহলে হয়তো এখন আপনার একাউন্ট ট্রেড করার মতো ব্যালেন্সও রয়েছে এবং আপনি ট্রেড শুরু করতে চান। না হলে লিংগুলো ক্লিক করে সম্পন্ন করে নিতে পারেন।  

প্রথমে যে প্রশ্নগুলো আপনার মনে হতে পারেঃ

০১. কিভাবে চার্ট ওপেন করতে হয় 

০২. চার্ট এর প্রোপার্টিস সেটাপ করতে হবে 

০৩. কিভাবে চার্ট এ ইন্ডিকেটর এড করতে হবে 

০৪. টাইমফ্রেম সেটাপ

০৫. একাধিক মার্কেট এনালাইসিস 

০৬. মেটাট্রেডার৪ এর চার্টের ধরন

০৭. চার্টের ধরন পরিবর্তন 

০৮. ভাষা নির্বাচন 

এই আর্টিকেল এ এ সকল প্রশ্নগুলো এবং এর পাশাপাশি আরও প্রয়োজনীয় কিছু বিষয় নিয়ে চিত্রের মাধ্যমে আলোচনা করা হয়েছে। 

১. মেটাট্রেডার৪ এ কিভাবে চার্ট ওপেন করতে হয় 

মেটাট্রেডার৪ এ তিনভাবে চার্ট ওপেন করতে পারেন, প্রতিটিই সহজ আপনি আপনার পছন্দমতো যেকোন একটি বাছাই করতে পারেন। 

A. মেইন মেনুর মাধ্যমে চার্ট উইন্ডো ওপেন করা 

নিচে চিত্রের মধ্যে দেখানো হয়েছে কিভাবে আপনি চার্ট ওপেন করতে পারেন।  আপনার মাউস দ্বারা মেইন মেনুর “File” ট্যাবটি ক্লিক করুন এবং সেখান থেকে “New Chart” মাউস পয়েন্টারটি রাখলে আরও অপশন প্রদর্শন করবে। এই অপশন গুলো হচ্ছে কারেন্সি পেয়ার এর, এখানে সেই পেয়ারগুলোই দেখাচ্ছে যা মার্কেট ওয়াচ উইন্ডোতে রয়েছে, সেখানে কম বেশি হলে এখানেও তাই হবে। যে কারেন্সি পেয়ার এর চার্টটি আপনি ওপেন করতে চান তা ক্লিক করুন। আমি GBP/USD চার্ট ওপেন করছি। 

B. মার্কেট ওয়াচ উইন্ডোর মাধ্যমে মেটাট্রেডার৪ এ চার্ট ওপেন করা

মার্কেট ওয়াচ থেকে নতুন চার্ট ওপেন করা

মার্কেট ওয়াচ এ থাকা পেয়ারগুলোর যে চার্ট টি আপনি ওপেন করতে চান তার উপর মাউস রেখে রাইট বাটন ক্লিক করুন, সেখানে “Chart Window” প্রদর্শিত হবে, সেখানে ক্লিক করলেই চার্ট ওপেন হবে। 

C. ফাস্ট মেনুর সাহায্যে “Create a new chart”

ফাস্ট মেন্যু থেকে চার্ট ওপেন

তৃতীয় পদ্ধতিটি হলো কুইক মেনুর মাধ্যমে চার্ট ওপেন করা, যেমন নিচের চিত্রে প্রদর্শিত হয়েছে। আপনি যখন এই বাটনএ ক্লিক করবেন তখন আপনার কাছে থাকা সকল কারেন্সি পেয়ার গুলো দেখতে পাবেন। যার মধ্যে প্রথম থেকে চতুর্থটি হল মার্কেট ওয়াচ এ থাকা প্রথম চারটি পেয়ার, আর বাকি গুলো রয়েছে “ফরেক্স” এর লিস্ট থেকে। এখান থেকে একইভাবে যে কোন কারেন্সি পেয়ার বাছাই করে ক্লিক করলেই ডান পাশে চার্টে ওপেন হবে। 

আমি GBP/USD চার্টে ওপেন করেছি, এবং আপনি দেখছেন যে আমি কি কি দেখতে পাচ্ছি। 

০১. কালো ব্যাকগ্রাউন্ড

০২. ক্যান্ডেলস্টিক চার্ট

০৩. মুভিং এভারেজ

০৪. উভয় ক্যান্ডেলস্টিক এর রঙ সবুজ

প্রথমবার চার্ট ওপেন

২. চার্ট প্রোপার্টিস কিভাবে সেটআপ করতে হবে

আপনি যদি একটি স্বচ্ছ চার্ট এবং ক্যান্ডেলস্টিক এর রঙ এর পরিবর্তন করতে চান তাহলে আপনাকে চার্ট সেটিংস এ পরিবর্তন করতে হবে। যার জন্য আপনাকে চার্টে মাউস পয়েন্টার রেখে রাইট বাটন এ ক্লিক করতে হবে এর ফলে যে মেন্যু ওপেন হবে তার একেবারে নিচের দিকে রয়েছে প্রোপার্টিস যেটি বাছাই করলে একটি নতুন উইন্ডো ওপেন হবে যাতে পরিবর্তন এর জন্য যা যা প্রয়োজন আপনি তা পেয়ে যাবেন। 

চার্টে মাউস পয়েন্টার রেখে রাইট বাটনে ক্লিক করতে হবে

আপনি যে উইন্ডো পাবেন তাতে রয়েছে দুটি ট্যাব 

* কমন এবং

*  কালার

এই দুটি অপশন নিয়ে এখন আলোচনা করবো।

২.১ মেটাট্রেডার-৪ এ চার্ট – প্রোপার্টিস অপশন কমন 

এই ট্যাব এ বেশ কিছু অপশন রয়েছে, তবে এর মধ্যে আমি যেগুলো টিক দিয়েছি আপনি শুধুমাত্র সেগুলোতে টিক দিলেই একটি ফ্রেশ চার্ট পাবেন যাতে আপনি স্পষ্টভাবে ক্যান্ডেলগুলো দেখতে পাবেন। 

• Show OHLC

  • উপরে বা পাশের কর্নারে আপনি দেখতে পাচ্ছেন একটি ট্রেডিং পেয়ারের নাম, যেখানে বর্তমানে দেখাচ্ছে GBPUSD

  • এর পাশেই রয়েছে চারটি কোট যেগুলো হল OHLC ( ওপেন, হাই, লো এবং ক্লোজ) আপনার বাছাইকৃত টাইম ফ্রেম এ সর্বশেষ ক্যান্ডেলস্টিক এর প্রাইজ এর তথ্য। 

• ক্যান্ডেলস্টিক 

  • এটিই একটি নির্দিষ্ট সময়ে প্রাইজ এর সম্পর্কে সবচেয়ে অধিক তথ্য প্রদান করে, বর্তমানে সবচেয়ে অধিক জনপ্রিয় চার্ট ক্যান্ডেলস্টিক চার্ট। 

• Chart on Foreground 

  • চার্ট এর অবস্থান কোথায় হবে

• Chart Shift

  • চার্ট কে আপনার ইচ্ছেমতো মাউস পয়েন্টার এর মাধ্যমে পিছনে বা সামনে নেয়া যায় এমন পদ্ধতি 

• Chart Autoscroll 

  • কোন কারনে যদি হঠাৎ করে চার্ট পিছনে চলেও যায় তাহলে সয়ংক্রিয়ভাবেই তা আবার সর্বশেষ ক্যান্ডেল এ চলে আসবে। 

প্রোপার্টিস এর সেটিংস এ কমন উইন্ডো থেকে যেগুলো বাছাই করা প্রয়োজন

২.২ মেটাট্রেডার৪ এ চার্ট- কালারস 

এই ট্যাব এ আপনি আপনার ইচ্ছেমতো চার্টের রঙ বদলাতে পারবেন, এটি একটি চমৎকার বিষয় তাই নয় কি?  আপনি যে কালারই বাছাই করুন না কেন তা বাম পাশের উইন্ডোতে প্রদর্শিত হবে যার ফলে অবশেষে ওকে করার পূর্বে আপনি বুঝতে পারবেন যে এটি সঠিকভাবে দেখা যাচ্ছে কিনা।  এখন আমি আমার পছন্দের কালারস গুলোর ব্যবহার করবো আপনিও চাইলে এর ব্যবহার করতে পারেন। তবে আপনি যে কালারই বাছাই করুন না কেন লক্ষ্য রাখবেন যাতে করে তা স্পষ্টরুপে বুঝা যায়।  

প্রোপার্টিস এর সেটিংস এ কালার মেন্যু থেকে কিভাবে কালার পরিবর্তন করবেন

২.৩ ইন্ডিকেটর রিমোভ করা 

কিছু কিছু চার্টে মুবিং এভারেজ বা অন্যান্য ইন্ডিকেটর এর উপস্থিতি থাকে, আপনি চাইলে ক্লিন চার্ট এর জন্য এটি মুছে ফেলতে পারেন, এর জন্য আপনাকে মাউস এর রাইট বাটন এ ক্লিক করতে হবে এবং বাছাই করতে হবে Indicator List” মেনুটি।

ইন্ডিকেটর লিস্ট

নতুন একটি উইন্ডো দেখেতে পাবেন যেখানে চার্টে থাকা সমস্ত ইন্ডিকেটর এর লিস্ট দেখতে পাবেন। এগুলোকে মুছে ফেলতে যেটিকে আপনি মুছে ফেলতে চান তা বাছাই করে, ডান পাশে থাকা “Delete” বাটন এ ক্লিক করুন। যার ফলে এটি চার্ট থেকে মুছে যাবে এবং আপনি সচ্ছ চার্ট দেখতে পাবেন।  

ইন্ডিকেটর ডিলিট করা

২.৪ পরিচ্ছন্ন চার্ট

আপনি প্রোপার্টিস এ চার্ট সেটআপ এত পরিবর্তন করার পর, নিচের চিত্রের মতো ক্লিন চার্ট দেখতে পাবেন। যেখানে থাকবেঃ

• সাদা ব্যাকগ্রাউন্ড 

• সবুজ বুল ক্যান্ডেল 

• লাল বেয়ার ক্যান্ডেল

• লাস্ট প্রাইজ লাইন

• ওএইচএলসি( ওপেন, হাই,লো এবং ক্লোজ) একেবারে উপরে বাম পাশের কর্নারে। 

পরিচ্ছন্ন চার্ট

৩. কিভাবে একটি চার্ট সেট আপ কে টেম্পলেট হিসেবে সংরক্ষণ করা যায়।  

আপনি যখন চার্ট এর এই পরিবর্তনগুলো সম্পন্ন করার পর আপনি সন্তুষ্ট হবেন, তখন নিশ্চয়ই চাইবেন যে সেগুলো সেব থাকুক যাতে করে পরবর্তীতে তা আবার একই সময় নিয়ে সেটিং না করে লাগে। তাই নয় কি? 

সে ব্যাবস্থাও মেটাট্রেডার এ রয়েছে চলুন দেখা নেয়া যাক কিভাবে তা করতে পারবেন। 

৩.১ টেম্পলেট সংরক্ষণ করা 

চার্ট এর উপর মাউস রেখে রাইট বাটন এ ক্লিক করুন, আপনি একটি মেনু দেখতে পাবেন “Template” এতে মাউসটি রাখলে আপনি দেখতে পাবেন “Save Template” সেব টেম্পলেট অপশনটি যেটিতে ক্লিক করার পর আপনি একটি উইন্ডো দেখতে পাবেন যেখানে আপনার এই টেম্পলেটটি সংরক্ষিত হবে

টেম্পলেট সংরক্ষণ

আপনি চাইলে এই লোকেশন পরিবর্তন করতে পারলেও না করাই উত্তম।  আমি এখানেই সেব করবো এবং এর নাম দিব “Clear chart” যাতে করে পরবর্তীতে বাছাইয়ের ক্ষেত্রে সহজ হয়।  এরপর ” Save” বাটন এ ক্লিক করলেই সংরক্ষিত হয়ে যাবে।  

টেম্পলেট ফোল্ডার এ চার্ট সংরক্ষণ

৪. কিভাবে এই সংরক্ষিত টেম্পলেটটি পুনরায় ব্যবহার করবেন

যে চার্ট টিতে আপনি এটি ব্যাবহার করতে চান, সে চার্টটিতে যেয়ে রাইট বাটন এ ক্লিক করুন, আবার “Template” মেনু থেকে ” Load Template” টি বাছাই করুন।

সংরক্ষণ করা টেম্পলেট কিভাবে ব্যবহার করবেন

আবারও নতুন একটি উইন্ডো ওপেন হবে, তখন আমি যেখানে টেম্পলেটটি সংরক্ষন করেছিলাম সেখান থেকে ” Clear chart” আপনি যে নাম দিয়েছেন সেই টেম্পলেটটি বাছাই করলেই তা বর্তমান চার্টেও প্রতিস্থাপিত হবে। মনে রাখবেন টেম্পলেট লোড হলে আপনার বর্তমান চার্টে থাকা সমস্ত রকমের ইন্ডিকেটর বা কোন সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স, ট্রেণ্ডলাইন সকল কিছু মুছে যাবে।  

ক্লিয়ার চার্ট লোড ফ্রম সেব ফাইল

৪.১ আমার চার্ট টেম্পলেট 

নিচের চিত্রে আমি যে চার্ট টেম্পলেটটি এই আর্টিকেল এর পরবর্তী অংশে ব্যবহার করবো তা রয়েছে আপনিও একইভাবে তা সেটআপ করতে পারেন। 

এর জন্য এই কালারস গুলোর ব্যবহার করতে হবে। 

আমার চার্টের কালার সেটিংস

৫. কিভাবে ইন্ডিকেটর এবং অন্যান্য টুলস এর ব্যবহার করতে হয় 

এখন আপনার চার্ট স্পষ্ট এবং সচ্ছ আপনি এখন আপনার চার্ট এ প্রাইজ এনালাইসিস করার জন্য যে কোন ইন্ডিকেটর এবং অন্যান্য টুলস আঁকতে পারেন। 

৫.১ মেটাট্রেডার৪ এ চার্ট – লাইন টুলবার

টাইম ফ্রেম
লাইন টুলবার

নিচের চিত্রে আপনি দেখতে পাচ্ছেন টাইম ফ্রেম এর বার যেখান থেকে আপনি টাইম বাছাই করবেন। এর নিচেই রয়েছে টুলসবার, আপনি যে টুলস টির ব্যবহার চার্টে করতে চান তা এখান থেকে বাছাই করতে হবে প্রথমে। 

যে তিনটি লাইন আপনি অবশ্যই ব্যবহার করবেন সেগুলো হলঃ

• ভার্টিকেল লাইন – আপনি যে কোন ক্যান্ডেল এর টাইম জানতে এর ব্যবহার করতে পারেন, যে সময়ে কোন গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্ট সংগঠিত হয়েছিল। 

• হরাইজোন্টাল লাইন – গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল চিহ্নিত করতে। 

• ট্রেন্ড লাইন – মার্কেট এর ট্রেন্ড সম্পর্কে ধারণা লাভ করতে। 

৫.১.১ হরাইজোন্টাল লাইন 

চার্টে কোন একটি প্রাইজ লেভেল যখন একাধিকবার স্পর্শ করে তখন তা বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায় এই দিক থেকে যে এরপর আবার সেই লেভেল প্রাইজ আসলে তা আবার একই রকম প্রাইজ একশন প্রদর্শন করতে পারে। তাই এই লেভেল সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা থাকা প্রয়োজন, তা যাতে সহজে একনজরে বুঝা যায় এই লক্ষ্যেই হরাইজোন্টাল লাইন আঁকা হয়। নিচের চিত্রে লাল লাইনটি যেখানে প্রাইজ একাধিকবার সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স হিসেবে ভূমিকা পালন করেছে। 

হরাইজোন্টাল লাইন

৫.১.২ ট্রেন্ড লাইন 

প্রাইজ চার্টে ট্রেন্ড লাইন আপনাকে বর্তমান ট্রেন্ড সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা প্রদান করে। এটি আকতে আপট্রেন্ড এ নিচের সর্বোচ্চ বা সর্বনিম্ন প্রাইজ পয়েন্ট থেকে উপরে টানতে হবে,  খেয়াল রাখতে হবে যাতে টপ এর সাথে টপ এবং লো এর সাথে লো সংযুক্ত হয়। ডাউনট্রেন্ড এ ঠিক এর বিপরিত। 

ট্রেন্ড লাইন

৫.২ চার্টে টাইম ফ্রেম সিলেক্ট করা 

আপনি টাইমফ্রেম বার থেকে যে কোন টাইম বাছাই করতে পারেন। একেবারে একমিনিট থেকে এক মাস পর্যন্ত। আমি টাইম ফ্রেম বাছাইয়ের ক্ষেত্রে ৪ ঘন্টার ব্যবহার করি আপনি চাইলে কম বা বেশি যে কোন সময়ের ব্যবহার করতে পারেন। 

টাইম ফ্রেম বার

ফিবোনাচি টুলস এর ব্যবহার এর মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল গুলো চিহ্নিত করা যায় এবং সম্ভব্য রিট্রেসমেন্ট লেভেল গুলো সম্পর্কেও ধারণা প্রদান করে।  

৫.৩. চার্টে ইন্ডিকেটর কিভাবে প্রবেশ করবেন

আপনি চার্টে লিস্ট এর যেকোনো ইন্ডিকেটর ইনসার্ট করতে পারেন,  আপনি একটি জনপ্রিয় এবং সহজে ব্যবহার করা যায় এমন একটি ইন্ডিকেটর ইনসার্ট করে উদাহরণ দিবো। মুবিং এভারেজ প্রায় সকল ফরেক্স ট্রেডারগন এর ব্যবহার করে থাকেন।  

এর জন্য প্রথমে “Insert” মেনু থেকে “Indicators” সাব মেনুতে মাউস পয়েন্টারটি রাখলে পাবেনঃ

• ট্রেন্ড

• অসিলেটর

• ভলিউম 

• কাস্টম 

এর মধ্যে থেকে ট্রেন্ড এ মাউস পয়েন্টার রাখলেই কয়েকটি ইন্ডিকেটর দেখতে পাবেন যার মধ্যে একটি হল মুবিং এভারেজ।

“মুবিং এভারেজ” এ ক্লিক করার পর একটি উইন্ডো ওপেন হবে যাতে মুবিং এভারেজ এর প্রোপার্টিস গুলো দেখতে পাবেন। সকল ইন্ডিকেটরই নিজস্ব প্রোপার্টিস থাকে যা আপনি প্রয়োজন মতো কাস্টমাইজ করতে পারবেন।  

মুভিং এভারেজ প্রোপার্টিস

এখানে বাই ডিফল্ট ১৪ পিরিয়ড দেয়া রয়েছে এবং আমি এর পরিবর্তন করছি না তবে আপনি এর পরিবর্তন করেও এর ব্যবহার করতে পারেন।  

চার্টে ১৪ পিরিয়ড মুবিং এভারেজ

৬. মেটাট্রেডার৪ এ কিভাবে একই মার্কেট প্রোফাইল এ চারটি টাইম ফ্রেম সেটআপ করতে পারেন। 

প্রতিটি চার্টে মান্থলি, উইকলি, ডেইলি এবং ৪ ঘন্টার টাইম ফ্রেম একসাথে ব্যবহার করতে পারেন। নিচের চিত্রে আমি একই কারেন্সি পেয়ার এর ক্ষেত্রে চারটি ভিন্ন ভিন্ন টাইম ফ্রেম এ চারটি চার্ট ওপেন করেছি যাতে এনালাইসিস এর ক্ষেত্রে আমার জন্য সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এর ফলে আপনি বুঝতে পারবেন যে সকল টাইম ফ্রেম এ কি একই ট্রেন্ড রয়েছে কিনা। 

একই কারেন্সি চারটি ভিন্ন ভিন্ন টাইম ফ্রেম এ

আপনি এই চার্ট লে-আউটটি প্রোফাইল হিসেবে সংরক্ষণ করতে পারেন যাতে করে প্রতিবারই আপনাকে তা আবার সেট আপ করার প্রয়োজন না লাগে।  এর জন্য আপনি প্রোফাইল মেনু থেকে “Save Profile as” ক্লিক করে যে কারেন্সি পেয়ার সেই নামে তা সংরক্ষণ করতে পারেন। এভাবেই অন্যান্য পেয়ার এর ক্ষেত্রেও তা করতে পারেন।  “”Next” বা “Previous” বাটনে ক্লিক করে সেগুলো আনতে পারেন। 

৭. একাধিক মার্কেট এনালাইসিস কিভাবে করতে হবে 

আপনি একাধিক চার্টও একসাথে ওপেন করতে পারেন। যেমন নিচের চিত্রে করা হয়েছে, এর মাধ্যমে আপনি একই সময়ে চার্ট পর্যবেক্ষণ করতে পারেন। এই চার্টটিও আপনি পূর্বের মতো করে প্রোফাইল মেনু থেকে সংরক্ষণ করতে পারেন।  

মার্কেট ওভারভিউ
মার্কেট ওভারভিউ সেভ করা

৮. কিভাবে মেটাট্রেডার৪ এ চার্ট এর ধরন পরিবর্তন করা যায় 

মেটাট্রেডার৪ এ তিনধনের চার্ট রয়েছে,  বার, ক্যান্ডেল এবং লাইন আপনি আপনার প্রয়োজন মতো যে কোন সময় যে কোন ধরনের চার্ট এর ব্যবহার করতে পারেন এর জন্য নিচের চিত্রে প্রদর্শিত করা পদ্ধতিতে শুধুমাত্র ওই চার্ট এর আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার চার্ট এ পরিবর্তন লক্ষ্য করুন।  

চার্ট এর ধরন পরিবর্তন

কোন ধরনের চার্ট কিভাবে কাজ করে বা আপনি কি সুবিধা পেতে পারেন তার জন্য চার্ট টাইপ এর উপর আমার আর্টিকেল গুলো পড়তে পারেন। 

৯. কিভাবে ভাষা পরিবর্তন করতে পারেন 

“View” মেনু থেকে আপনি ভাষা পরিবর্তন করতে পারেন নিম্নরূপঃ

ভাষা পরিবর্তন

সারসংক্ষেপ 

আপনি এখন ট্রেড শুরু করতে পারেন, মেটাট্রেডার৪ এর সম্পর্কে আপনি এখন ধারণা লাভ করেছেন, আপনার একাউন্ট রয়েছে এবং চার্ট সেটআপও করতে পারেন।  ট্রেড শুরু করুন কোন ধরনের প্রশ্ন আপনার মনে উদয় হলে আমাকে সরাসরি লিখতে পারেন।